Keep and Share logo     Log In  |  Mobile View  |  Help  
 
Visiting
 
Select a Color
   
 

Creation date: Jan 3, 2023 6:58am     Last modified date: Jan 3, 2023 6:58am   Last visit date: Feb 3, 2023 1:05pm
1 / 20 posts
Jan 3, 2023  ( 1 post )  
1/3/2023
6:58am
Santo SEo (seosanto7)

উত্তরবঙ্গের ছয় লেনের মহাসড়ক নির্মাণকাজ বেশ আগেই শুরু হয়েছে। এবারে বড় আকারে রেলপথ সংযোগের আওতায় আসতে যাচ্ছে উত্তরবঙ্গ। যার শুরুটা হচ্ছে যমুনা নদীর ওপরে বঙ্গবন্ধু রেল সেতু দিয়ে। রেল বিভাগ বলছে, পুরো দেশকে রেল নেটওয়ার্কের আওতায় আনতে মহাপরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। সেই উদ্যোগের একটি অংশ উত্তরের জনপদের রেলসংযোগ সংস্কার ও নতুন রেলপথ সংযোজন। বঙ্গবন্ধু সেতু দিয়ে যেখানে ৩৮টি রেল চলাচল করতে পারে সেখানে বঙ্গবন্ধু রেলওয়ে সেতু নির্মিত হলে প্রতিদিন ৬৮টি রেল চলাচল করতে পারবে।

 

একইসঙ্গে আন্তর্জাতিক রুট হিসেবে ভারতের সঙ্গে রেল সংযোগ স্থাপনের লক্ষ্যে নীলফামারীর চিলাহাটি এবং চিলাহাটি বর্ডারের মধ্যে ব্রডগেজ রেলপথ নির্মাণ প্রকল্পের কাজও চলছে। অন্যপাশে ভারতের ফুলবাড়ি অংশে শিলিগুড়ি পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণ করছে দেশটির রেলবিভাগ।

 

বঙ্গবন্ধু-রেলওয়ে-সেতু  

উন্নয়ন-প্রকল্প  

রেল-যোগাযোগ  

বাংলাদেশ-রেলওয়ে 



photo

রেল বিভাগ বলছে, ৪.৮ কিলোমিটার দীর্ঘ ডাবল লাইন ডুয়েল গেজের এই রেল সেতু হবে দেশের বৃহত্তম ডেডিকেটেড রেল সেতু। সেতুটিতে ৫০টি পিলার ও ৩৭টি স্প্যান থাকবে। এই স্প্যানের মধ্যে ৩৬টি নির্মাণ করা হবে ভিয়েতনাম ও মিয়ানমারে। বাকি ১টি নির্মাণ করা হবে বাংলাদেশে। সেতুটি জাপানি প্রযুক্তিতে, এন্টিওয়েদারিং স্টিল দিয়ে তৈরি হবে। যাতে কখনোই রং করতে না হয়। এতে সেতু রক্ষণাবেক্ষণ খরচও তেমন লাগবে না। নতুন এ সেতুর উপর দিয়ে ব্রডগেজ লাইনে ঘণ্টায় ১২০ কিলোমিটার এবং মিটার গেজ লাইনে ঘণ্টায় ১০০ কিলোমিটার বেগে রেল চলতে পারবে।

 

mega projects in bangladesh

bd development project

bangladesh development update 

3rd_terminal 

বাংলাদেশের মেগা প্রকল্প 

 

বঙ্গবন্ধু সেতু দিয়ে যেখানে ৩৮টি রেল চলাচল করতে পারে সেখানে বঙ্গবন্ধু রেলওয়ে সেতু নির্মিত হলে প্রতিদিন ৬৮টি রেল চলাচল করতে পারবে।

 

আরও জানুনঃ 

চলনবিলের শুটকি রপ্তানি হচ্ছে বিদেশে | chalan Beel | natore | dry fish | export 

 

সম্পূর্ণ বঙ্গবন্ধু টানেল (কর্ণফুলী) টানেল এক ভিডিওতে | Karnaphuli Tunnel | bangabondhu tunnel



রেল সেতুটির বৈশিষ্ট্য

 

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. হুমায়ুন কবীর জানিয়েছেন, নতুন রেল সেতু হলে নতুন রুট চালু করা হবে। বর্তমানে যে রেল সেতুগুলো রয়েছে তাতে একটি করে লাইন রয়েছে। এই সেতুটিতে দুটি রেললাইন বসবে। যার ফলে কোনো ট্রেনকে সেতু পার হওয়ার জন্য অপেক্ষা করতে হবে না। একসঙ্গে দুটো ট্রেন দুদিকে চলে যেতে পারবে।

 

এখন বঙ্গবন্ধু সেতুতে ঘণ্টায় সর্বচ্চো ১৫ থেকে ২০ কিলোমিটার বেগে ট্রেন চলাচল করতে পারে। এই সেতুটিতে ঘণ্টায় সর্বচ্চো ১২০ কিলোমিটার বেগে ট্রেন চলতে পারবে। এটির ওপর দিয়ে যেকোনো ওজনের মালবাহী ও যাত্রীবাহী ট্রেন চলতে পারবে। এই ব্রিজটির ওপর দিয়ে একাধিক লোকোমোটিভ বা ইঞ্জিন দিয়ে ট্রেন চালানো যাবে।

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন

বাংলাদেশের কৃষি উন্নয়ন

ডিজিটাল বাংলাদেশ 

পিনাকী 



তিনি বলেন, সাধারণত মালবাহী ট্রেনগুলোকে প্রায়ই দুটি ইঞ্জিন দিয়ে টানতে হয়। বর্তমান ব্রিজের ওপর দিয়ে সেটি সম্ভব হয় না। ইঞ্জিন মেরামত করার জন্য সেটিকে অন্য আরেকটি ইঞ্জিন দিয়ে টেনে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থাও বঙ্গবন্ধু সেতুতে নেই। যে কারণে পার্বতীপুরের কারখানায় মেরামতের জন্য ইঞ্জিন নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয় না। এই সেতু হলে সেটি সম্ভব হবে।

 

যেভাবে তৈরি হচ্ছে রেল সেতু

 

সেতুটি সম্পর্কে বিস্তারিত জানিয়ে প্রকল্প পরিচালক ফাত্তাহ মো. মাসউদুর রহমার বলেন, এই সেতুটি তৈরিতে যেসব উপকরণ ও প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে সেটি এখনকার রেল সেতুগুলো থেকে আলাদা। এটি ওয়েদারিং স্টিল দিয়ে তৈরি করার কারনে রক্ষণাবেক্ষণ খরচ প্রায় শূন্য। এই সেতুটির ফাউন্ডেশনে জাপানের একটি প্রযুক্তি ব্যবহার হচ্ছে। যে প্রযুক্তি জাপানের বাইরে খুব কম ব্যবহৃত হয়। রেল লাইনগুলো চাকার ঘর্ষণে ক্ষয়ে যাওয়া কমাতে বিশেষ উপকরণ ব্যবহার করা হবে। তাই লাইনগুলো কম পরিবর্তন হবে। এক লাইন দীর্ঘসময় ধরে কার্যক্ষম থাকবে। ব্রিজের সংযোগস্থলে যে প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে তাতে ব্রিজটির নিজের ওজন কম হবে। এতো উচ্চ প্রযুক্তি দেশের কোনো রেল সেতুতে নেই। 

 

আন্তর্জাতিক সংযোগের পরিকল্পনা

 

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. হুমায়ুন কবীর জানান, একটা আলাদা (রেল) সেতু দেশের আভ্যন্তরীণ আর্থ সামাজিক উন্নতির পাশাপাশি আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিকভাবে দেশকে সংযুক্ত করবে। বাংলাদেশ ট্র্যান্স এশিয়ান রেলওয়ে নেটওয়ার্কের সঙ্গে যুক্ত হতে চায়। এই সেতুটি ভবিষ্যতে সেই সংযোগ তৈরি করতে সহায়তা করবে বলে আশা করা হচ্ছে। এই লক্ষ্য নিয়ে উত্তরের সীমান্ত এলাকায় রেললাইন সম্প্রসারণের কাজ চলছে।

 

আরও দেখুনঃ

জন্মনিবন্ধনে লাগবে না মা বাবার তথ্য | New rules for Online Birth Certificate 

 

মেরুদণ্ড জোড়া লাগা দুই শিশু দেশেই আলাদা হবে এই প্রথম | Nuha Naba | Twin sisters with spinal fusion



রেলে চলমান প্রকল্পসমূহ

 

বঙ্গবন্ধু রেল সেতুকে ঘিরে এই অঞ্চলে চলছে রেল বিপ্লব। রেলের মেগা প্রকল্পের বেশিরভাগই এই অঞ্চলে। এখানে উল্লেখযোগ্য প্রকল্পগুলোর মধ্যে রয়েছে ভারতের সঙ্গে রেল সংযোগ স্থাপনের লক্ষ্যে চিলাহাটি এবং চিলাহাটি বর্ডারের মধ্যে ব্রডগেজ রেলপথ নির্মাণ। বগুড়া থেকে শহীদ এম মনসুর আলী স্টেশন, সিরাজগঞ্জ পর্যন্ত নতুন ডুয়েলগেজ রেলপথ নির্মাণ। জয়দেবপুর থেকে ঈশ্বরদী পর্যন্ত ডুয়েল গেজ ডাবল লাইন নির্মাণ। রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলের লেভেল ক্রসিং গেইটসমূহের পুনর্বাসন ও মান উন্নয়ন। মিটারগেজ ও ব্রডগেজ প্যাসেঞ্জার ক্যারেজ সংগ্রহ। লোকোমোটিভ, রিলিফ ক্রেন এবং লোকোমোটিভ সিমুলেটর সংগ্রহ। ২০টি মিটারগেজ লোকোমোটিভ এবং ১৫০টি মিটারগেজ যাত্রীবাহী ক্যারেজ সংগ্রহ।

 

পার্বতীপুর থেকে কাউনিয়া পর্যন্ত মিটারগেজ রেলওয়ে লাইনকে ডুয়েলগেজে রূপান্তর। পশ্চিমাঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পসমূহের সম্ভাব্যতা সমীক্ষা। খুলনা-দর্শনা জংশন সেকসনে ডাবল লাইন রেলপথ নির্মাণ। রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য সিগন্যালিংসহ রেল লাইন সংস্কার ও নির্মাণ। দর্শনা থেকে দামুড়হুদা এবং মুজিবনগর হয়ে মেহেরপুর পর্যন্ত নতুন ব্রডগেজ রেল লাইন নির্মাণের জন্য সম্ভাব্যতা যাচাই ও বিশদ ডিজাইন।

 

আরও জানুনঃ

 

চাঙ্গির আদলে নির্মিত হচ্ছে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনাল | Dhaka Airport Update

 

‘গ্লোাবাল অ্যাম্বাসেডর ফর ডায়াবেটিস’ হলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা | HPM Sekh Hasina 

 

২১টি মিটারগেজ ডিজেল ইলেক্ট্রিক লোকোমোটিভ নবরূপায়ন, ১০০টি মিটারগেজ যাত্রীবাহী ক্যারেজ পুনর্বাসন, ২০০টি মিটার গেজ প্যাসেঞ্জার ক্যারেজ সংগ্রহ ও আখাউড়া-আগরতলা ডুয়েলগেজ রেল সংযোগ নির্মাণ (বাংলাদেশ অংশ)।

 

রেলমন্ত্রী যা বলছেন

 

রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন বলেন, আগামী ২০২৪ সালের মধ্যে আমরা যমুনা রেল সেতু উদ্বোধন করতে পারবো এবং এ বছরের মধ্যেই পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে ঢাকা থেকে ভাঙ্গা পর্যন্ত রেল চলাচল করবে।

 

বঙ্গবন্ধু রেল সেতু সম্পর্কে মন্ত্রী আরো বলেন, আশা করছি শুরু থেকেই পঞ্চগড় থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত রেল চলাচল করবে। এ বছরের মধ্যেই খুলনা থেকে মোংলা পর্যন্ত রেল চালু হবে। এছাড়া ডিসেম্বরের মধ্যেই টঙ্গী থেকে জয়দেবপুর পর্যন্ত সিঙ্গেল লাইন ডাবল এবং কমলাপুর থেকে টঙ্গী পর্যন্ত থার্ড লাইন ফোর লাইনে বর্ধিত করার কাজ সম্পন্ন হবে। সবমিলিয়ে রেল চলাচলে একটা বড় পরিবর্তন আসছে। 



আরও জানুনঃ

 

নাটোর 

রাজশাহী

পাবনা 

নওগাঁ 

চাঁপাইনবাবগঞ্জ 

 

প্রবাসীদের রেমিট্যান্স পাঠাতে লাগবে না চার্জ, পাবেন যেসকল সুযোগ সুবিধা | প্রবাসী সুখবর | Remittance 

 

চিনের সাংহাই সিটির মতো চট্টগ্রামে হবে ওয়ান সিটি টু টাউন | Karnaphuli Tunnel | bangabondhu tunnel

 

ইলেকট্রিক বাসের যুগে প্রবেশ করেছে বাংলাদেশ | Electric Bus | Walton Electric Bus| BRTC | E Bus Dhaka

 

বাংলাদেশের তৈরি টি শার্টে কাতার বিশ্বকাপ মাতাবে মেসি নেইমাররা | Qatar World Cup 2022 | Fifa jersey

কাতার বিশ্বকাপ ফ্লাগ প্লাজায় পতাকায় বিশ্বের সামনে বাংলাদেশ | Qutar World Cup 2022 | FIFA | BD FLAG

 

Know more:

 

Natore

Rajshahi

Pabna

Naogaon

Chapai nawabganj  



Know more about Bangladesh: Bangladesh update news, Bangladesh news, Bangladesh top news update, Bangladesh daily newsBangladesh politics, Bangladesh Politics Update